January 26, 2022, 7:50 pm

শিরোনাম :
নিয়োগের চূড়ান্ত সুপারিশপত্র পেলেন ৩৪ হাজার ৭৩ জন শিক্ষক মুন্সীগঞ্জ‌ে মিরকা‌দিম পৌরবাসীরা কি স্বাস্থ্য সম্মত গরুর মাংস খাচ্ছে? আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা ও গণঅভ্যুত্থান ঈদগাঁওতে ২৫ লিটার দেশীয় চোলাই মদসহ আটক-২ জ্বালানি থেকে বাড়তি টাকা তুলে সড়ক সংস্কার করা হবে নাসিকে ভোটযুদ্ধ আজ ॥ নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা গোটা নির্বাচনী এলাকা বাংলাদেশ থেকে দ্বিগুণ ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ নেবে ভারত হটলাইনে চার মিনিটেই পর্চা-মৌজা ম্যাপের আবেদন শৈলকুপায় সামাজিক আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে যুবকে পিটিয়ে হত্যা নির্বাচনী সহিংসতায় আহত ব্যক্তির মৃত্যু ঝিনাইদহের শৈলকুপায় নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ৬

ঠাকুরগাঁওয়ে প্রতিবন্ধীদের মাঝে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ের আনন্দ প্রতিবন্ধী স্কুল এন্ড পূর্ণবাসন কেন্দ্রে পড়াশোনার পাশাপাশি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের খেলাধুলায় আগ্রহী করে তুলতে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার দুপুরে সদর উপজেলার রহিমানপুর ইউনিয়নের আনন্দ প্রতিবন্ধী স্কুল এন্ড পূর্ণবাসন কেন্দ্রের চত্বরে এ ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় আনন্দ প্রতিবন্ধী স্কুল এন্ড পূর্ণবাসন কেন্দ্রের দেড় শতাধিক শিক্ষার্থী বিভিন্ন ইভেন্টে অংশগ্রহণ করেন। বিস্তারিত..

‘ডাকসু নির্বাচনে’ ছাত্রলীগের ভিপি,জিএস ও এজিএস প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত

এম এইচ ফাহাদ-বিশেষ প্রতিনিধি: আগামি ১১ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ডাকসু নির্বাচন। সেই লক্ষে ইতিমধ্যে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সংগঠনের পক্ষথেকে প্রার্থীর নাম চুরান্ত করেছে। ছাত্রলীগের পক্ষ হতে একজন ভিপি (সহ-সভাপতি), জিএস (সাধারণ সম্পাদক) ও এজিএস চূড়ান্ত করা হয়েছে। গত রাতে গণভবনে এক বৈঠকে প্রার্থী চুরান্ত করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সর্বোত্তম সিদ্ধান্তের একমাত্র অভিবাবক ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী বিস্তারিত..

ওয়াহিদ ম্যানশনেও অক্ষত কোরআন-হাদিসের বই!

  এবার ওয়াহিদ ম্যানশনেও অক্ষত কোরআন-হাদিসের বই! প্রেসটিভি ডেস্ক : পুরান ঢাকার চকবাজারের চুড়িহাট্টার হাজী ওয়াহিদ ম্যানশনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৬৭ জন নিহত হয়েছেন। এই আগুনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় চারতলা ওয়াহিদ ম্যানশন! তবে অবাক করার বিষয় হলো আগুনে ওয়াহিদ ম্যানশনসহ পাঁচটি ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হলেও অপার বিস্ময়ে অক্ষত অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে চুড়িহাট্টা শাহী মসজিদ। বিস্তারিত..

‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধির ৫০ বছরপূর্তি বঙ্গবন্ধু দিবসের স্মৃতিকথা-তোফায়েল আহমেদ

‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধির ৫০ বছরপূর্তি বঙ্গবন্ধু দিবসের স্মৃতিকথা-তোফায়েল আহমেদ এম এইচ ফাহাদ-বিশেষ প্রতিনিধি: প্রতিবছর ২৩ ফেব্রুয়ারি যখন ফিরে আসে, স্মৃতির পাতায় অনেক কথা ভেসে ওঠে। আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ এই দিনটিকে গভীরভাবে স্মরণ করি। ১৯৬৯-এর ২৩ ফেব্রুয়ারির পর থেকে বঙ্গবন্ধুর একান্ত সান্নিধ্য পেয়েছি। এবারে ‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধি প্রদানের ৫০ বছর। দেখতে দেখতে অর্ধশত বছর পেরিয়ে গেল। প্রিয় নেতা বিস্তারিত..

তৃণমুল দেখতে চাই আলম চেয়ারম্যানকেঃ হেলাল উদ্দিন চৌধুরী

তৃণমুল দেখতে চাই আলম চেয়ারম্যানকেঃ হেলাল উদ্দিন চৌধুরী টেকনাফ প্রতিনিধিঃ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে টেকনাফ উপজেলার চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল আলমের পক্ষে হেলাল চৌধুরীর ফেইসবুক স্ট্যাটাস হুবহু তুলে ধরা হল নেত্রী যাকে দিবে তারপক্ষে কাজ করব। জানি, অনেক চক্রান্ত, ষড়যন্ত্র এক হয়ে হঠানোর অপেক্ষায়, কিন্তু তৃনমূলের শক্তিই যে গাছের শিকড়। তৃনমূল চাই নুরুল আলম ভাইকে, যার হাত বিস্তারিত..

ঐক্যফ্রন্টের গণশুনানি বনাম বাস্তবতা

ঐক্যফ্রন্টের গণশুনানি বনাম বাস্তবতা  প্রেসটিভি ডেক্স: ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচনে ৮০ শতাংশের বেশি ভোট পেয়ে টানা তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় আসে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকার। আর আওয়ামী লীগ সরকার মানেই ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের নির্ভয়ে জীবনযাপন করা। নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে যেয়ে ভোট প্রদান করা। আর আওয়ামী লীগ’ই এমন একটি দল যাদের শাসনামলে বিস্তারিত..

ঐক্যফ্রন্টের গণশুনানি বনাম বাস্ততবতা প্রেসটিভি : ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচনে ৮০ শতাংশের বেশি ভোট পেয়ে টানা তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় আসে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকার। আর আওয়ামী লীগ সরকার মানেই ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের নির্ভয়ে জীবনযাপন করা। নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে যেয়ে ভোট প্রদান করা। আর আওয়ামী লীগ’ই এমন একটি দল যাদের শাসনামলে বিস্তারিত..

চকবাজার ট্র্যাজেডি; দু:সময়ে পাশে আছে সরকার

চকবাজার ট্র্যাজেডি; দু:সময়ে পাশে আছে সরকার  প্রেসটিভি : ২০ ফেব্রুয়ারি রাত ১০:২৮, চকবাজার।প্রতিদিনের মতো দোকানপাট বন্ধ করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন চকবাজারের চুড়িহাট্টা এলাকার ব্যবসায়ীরা।চুড়িহাট্টা মসজিদের সামনে একটা চার রাস্তার মোড়। এর দক্ষিণ পাশে রয়েছে পাঁচতলা বিশিষ্ট ওয়াহিদ ম্যানশন। এই ভবনের নিচতলায় রয়েছে একটি হোটেল, ২য় তলায় হোটেলের মেস, ৩য় তলায় বডি স্প্রের গোডাউন, চতুর্থ ও পঞ্চম তলায় রয়েছে কেমিক্যালের বিস্তারিত..

কমে আসছে বাংলা চলচ্চিত্রের অশ্লীলতা

কমে আসছে বাংলা চলচ্চিত্রের অশ্লীলতা প্রেসটিভি: লা চলচ্চিত্রে অশ্লীলতা নতুন কিছুনয়। বহুবছর আগে থেকেই দেশীয়চলচ্চিত্রে অশ্লীল কর্মকাণ্ড হয়েআসছে। বিশেষ করে একটা সময়দেশীয় চলচ্চিত্রে ব্যাপক হারেঅশ্লীলতা ছেয়ে গিয়েছিল। ১৯৫৪সালে ‘মুখ ও মুখোশ’ দিয়ে ছবিনির্মাণ শুরু হয় বাংলাদেশে৷ ১৯৫৬সালে এটি মুক্তি পায়৷ ১৯৫৬ থেকে১৯৭১ পর্যন্ত আমাদের চলচ্চিত্র হিন্দিও উর্দু ছবির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলতো৷তখন এহতেশাম, জহির রায়হান,ফতেহ লোহানী, শুভাষ দত্তরা সিনেমানির্মাণ করতেন৷ হিন্দি ও উর্দুসিনেমার সাথে প্রতিযোগিতার কারণেতারা ছবির মানের দিকে খেয়ালরাখতেন। তাদের ছবি দর্শক গ্রহণওকরেছিল। হিন্দি/উর্দু ছবির সাথেফাইট করেও অনেক ব্যবসাসফলছবি উপহার দিয়েছিলেন তখনকারপরিচালকেরা। স্বাধীনতার পরতখনকার শিল্পীদের দাবির মুখেজাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুররহমান হিন্দি ও উর্দু ছবির আমদানিবন্ধ করে দেন৷ এরপর ৭০-এর দশকজুড়ে মৌলিক ছবির বাজার ছিল গর্বকরার মতো৷ ১৯৯৭ সালের দিকে দেশীয় চলচ্চিত্রেঅশ্লীলতা প্রভাব বিস্তার করে৷চলচ্চিত্রে অশ্লীলতার হার এতোটাইভয়াবহ ছিল যে বাংলাদেশ চলচ্চিত্রউন্নয়ন কর্পোরেশন (এফডিসি) প্রায়পুরোটাই ধ্বসের মুখে পড়ে। সেইসময়কার বিএনপি জামায়াত সরকারচলচ্চিত্রের উন্নয়নের জন্য কোনোধরণের ব্যবস্থা নেয়নি বললেই চলে।ধরা যায়, এফডিসিকে পুরোটাইছেড়ে দিয়েছিলো নিজ হস্তে চলারজন্য। এরপর ২০০৮ সালে আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার আগপর্যন্ত বাংলা চলচ্চিত্রের অশ্লীলতারপ্রভাব লক্ষ্য করা যায়৷ বলা হয়েথাকে সেই সময়টা হলো বাংলাচলচ্চিত্রের অন্ধকার যুগ। তৎকালীনতত্বাবধায়ক সরকারের কঠোরঅভিযান এর পর অশ্লীলতা দূরহলেও সিনেমার সুদিন ফেরেনি।নকল ও মানহীন গল্পের সিনেমানির্মাণ হয়েছে একের পর এক।ইন্টারনেটের কল্যাণে সিনেমার গল্পনকল করার জন্য তখন আর ভারতেযাওয়া লাগতো না। ঘরে বসেইল্যাপটপে হুবহু সিন টু সিন কপি করেতৈরি শুরু হলো স্ক্রিপ্ট। কিন্তু কাজেরকাজ কিছুই হলো না। এরপর ২০০৮ সালে শেখ হাসিনারনেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকারক্ষমতায় আসার পর দমিয়ে দেয়া বিস্তারিত..

‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধির ৫০ বছরপূর্তি বঙ্গবন্ধু দিবসের স্মৃতিকথা।।তোফায়েল আহমেদ

এম এইচ ফাহাদ-বিশেষ প্রতিনিধি: প্রতিবছর ২৩ ফেব্রুয়ারি যখন ফিরে আসে, স্মৃতির পাতায় অনেক কথা ভেসে ওঠে। আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ এই দিনটিকে গভীরভাবে স্মরণ করি। ১৯৬৯-এর ২৩ ফেব্রুয়ারির পর থেকে বঙ্গবন্ধুর একান্ত সান্নিধ্য পেয়েছি। এবারে ‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধি প্রদানের ৫০ বছর। দেখতে দেখতে অর্ধশত বছর পেরিয়ে গেল। প্রিয় নেতা তার যৌবনের তেরোটি মূল্যবান বছর পাকিস্তানের কারাগারে কাটিয়েছেন। বিস্তারিত..



গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে বিধি মোতাবেক আবেদিত
Design & Developed BY ThemesBazar.Com