January 27, 2022, 10:57 am

শিরোনাম :
নিয়োগের চূড়ান্ত সুপারিশপত্র পেলেন ৩৪ হাজার ৭৩ জন শিক্ষক মুন্সীগঞ্জ‌ে মিরকা‌দিম পৌরবাসীরা কি স্বাস্থ্য সম্মত গরুর মাংস খাচ্ছে? আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা ও গণঅভ্যুত্থান ঈদগাঁওতে ২৫ লিটার দেশীয় চোলাই মদসহ আটক-২ জ্বালানি থেকে বাড়তি টাকা তুলে সড়ক সংস্কার করা হবে নাসিকে ভোটযুদ্ধ আজ ॥ নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা গোটা নির্বাচনী এলাকা বাংলাদেশ থেকে দ্বিগুণ ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ নেবে ভারত হটলাইনে চার মিনিটেই পর্চা-মৌজা ম্যাপের আবেদন শৈলকুপায় সামাজিক আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে যুবকে পিটিয়ে হত্যা নির্বাচনী সহিংসতায় আহত ব্যক্তির মৃত্যু ঝিনাইদহের শৈলকুপায় নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ৬
Uncategorized
দীর্ঘ ২৭ বছর পর দেশে পাচ্ছে কোনও পুরুষ বিরোধী দলীয় নেতা

দীর্ঘ ২৭ বছর পর দেশে পাচ্ছে কোনও পুরুষ বিরোধী দলীয় নেতা

গত ৩০ ডিসেম্বর সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২২ টি আসন পেয়ে দ্বিতীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসেবে বিরোধী দলের নেতা হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছে জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসাইন মুহম্মদ এরশাদ। আর এতেই দীর্ঘ ২৭ বছর পর দেশের রাজনীতিতে কোনো পুরুষ বিরোধী দলীয় নেতা হতে যাচ্ছেন তিনি। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও বিরোধী দলে ছিল জাপা। কিন্তু সে সময় এরশাদ বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ দূত থাকার কারনে এরশাদ পত্নী রওশন এরশাদ বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।
১৯৮৩ সালে নির্বাচিত সরকারের অধীনে সেনাপ্রধানের দায়িত্ব পালনকালেই রাষ্ট্রক্ষমতা গ্রহণ করেন এরশাদ। প্রায় অর্ধযুগেরও বেশি সময় সামরিক শাসন জারির মাধ্যমে দেশ শাসন করেন তিনি। যদিও দেশে গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা পুন:প্রবর্তনের উদ্দেশ্য ঘোষণা করে ১৯৮৬ খ্রিস্টাব্দে সংসদীয় সাধারণ নির্বাচনের আয়োজন করেন সাবেক এই সেনাশাসক। এই নির্বাচনে তিনি স্বপ্রতিষ্ঠিত জাতীয় পার্টির ভোটপ্রার্থী হিসাবে অংশগ্রহণ করেন এবং পরে পাঁচ বৎসরের জন্য বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন এরশাদ। কিন্তু ১৯৯০ খ্রিষ্টাব্দে গণবিক্ষোভের ও সেনাবাহিনীর সমর্থনের অভাবে তিনি পদত্যাগ করতে বাধ্য হয় এরশাদ।
১৯৯১ সালের ২৭শে ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি নেতৃত্বে থাকা বেগম খালেদা জিয়া ৩০০টি আসনের বিপরীতে ১৪০টি আসন লাভ করে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় যায়। যেখানে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে থাকা শেখ হাসিনা প্রধান বিরোধী দলের দায়িত্ব পালন করেন।
এরপর ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আ.লীগসহ অধিকাংশ বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো নির্বাচনটি বর্জন করলে মোট ভোট গৃহীত হয়েছিল মাত্র ২১ শতাংশ আর এতেই বিএনপি ৩০০টি আসনের মধ্যে ৩০০ টিতেই আসনে জয়লাভের বিষয়টি জনগণ প্রত্যাখ্যান করলে পরবর্তীতে ১৯৯৬ সালের ১২ জুন সপ্তম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। আর এতে আ.লীগের জয়ে শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হন। এবং বিএনপির খালেদা জিয়া বিরোধী দলের নেতা হয়।
পরবর্তীতে ২০০১ সালের অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারো ক্ষমতায় আসে বিএনপি এবং বিরোধী দলের নেতা হন শেখ হাসিনা।
তবে ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বিএনপির ভরাডুবি হলেও বিরোধী দলের নেতা হন বেগম জিয়া। যেখানে পুনরায় রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় যায় আসে শেখ হাসিনার সরকার।
২০১৪ সারের পাঁচ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেয়নি। যেখানে শেখ হাসিনা পুনারায় প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন এবং প্রথমবারের মতো জাতীয় পার্টি বিরোধী দলে যান। যেখানে জাপা প্রধান এরশাদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ দূত থাকায় ক্ষমতাসীন মহাজোট থেকে বেরিয়ে এরশাদ পত্নী রওশন এরশাদ হন বিরোধী দলীয় নেতা।
তবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণের পরও ২৫৭ টি আসন পায় শেখ হাসিনার দল। যেখানে তিনি নিজে বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো টানা তিনবার প্রধানমন্ত্রী হন। বিএনপি পায় মাত্র ৫ টি আসন। আর জাপা ২২ টি আসন পাওয়ায় সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ গেল ২৭ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বিরোধী দলীয় নেতার পদে নারী হতে বেরিয়ে এসে পুরুষ বিরোধী দলীয় নেতা পদে আসীন হন।

শেয়ার করুন




গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে বিধি মোতাবেক আবেদিত
Design & Developed BY ThemesBazar.Com