January 23, 2022, 3:42 am

শিরোনাম :
নিয়োগের চূড়ান্ত সুপারিশপত্র পেলেন ৩৪ হাজার ৭৩ জন শিক্ষক মুন্সীগঞ্জ‌ে মিরকা‌দিম পৌরবাসীরা কি স্বাস্থ্য সম্মত গরুর মাংস খাচ্ছে? জ্বালানি থেকে বাড়তি টাকা তুলে সড়ক সংস্কার করা হবে নাসিকে ভোটযুদ্ধ আজ ॥ নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা গোটা নির্বাচনী এলাকা বাংলাদেশ থেকে দ্বিগুণ ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ নেবে ভারত হটলাইনে চার মিনিটেই পর্চা-মৌজা ম্যাপের আবেদন শৈলকুপায় সামাজিক আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে যুবকে পিটিয়ে হত্যা নির্বাচনী সহিংসতায় আহত ব্যক্তির মৃত্যু ঝিনাইদহের শৈলকুপায় নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ৬ লামার কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনে সাড়ে তিন হাজার কন্ঠে উচ্চারিত ‘ইনশাল্লাহ সব সম্ভব’ শত্রুতার আগুনে পুড়ে পুড়ল ৮ দোকান
কক্সবাজারের ইসলামপুরে বনবিভাগের জায়গায় চলছে অবৈধ স্থাপনা নির্মান!

কক্সবাজারের ইসলামপুরে বনবিভাগের জায়গায় চলছে অবৈধ স্থাপনা নির্মান!

সেলিম উদ্দীন ককসবাজার : ককসবাজার সদর উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নে বনবিভাগের জায়গা দখল করে পাহাড় কেটে পাকা বাড়ি নির্মান কাজ শুরু করেছে এক জনপ্রতিনিধি। ইউনিয়নের নতুন অফিস রিফাত সড়কে বনবিভাগের বিশাল জায়গা দখল ও সংশ্লিষ্টদের ম্যানেজ করে এমনতর কাজ করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।
খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায়, ইউনিয়নের ইসলামপুর নতুন অফিস রিফাত সড়কে স্থানীয় ইউপি মেম্বার ওবাইদুল হক বনবিভাগের বিশাল জায়গা অবৈধভাবে দখল করে পাহাড় কেটে পাকাবাড়ি নির্মান কাজ শুরু করেন। দিনদুপুরে প্রকাশ্যে অর্ধ শতাধিক নির্মান শ্রমিক দিয়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। দিন দুপুরে প্রকাশ্যে এ জনপ্রতিনিধির আস্করা দেখে সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় নেতারা জানান, বনবিভাগের অসাধু কর্মকর্তাদের ম্যনেজ করে একটি চক্র বনভুমির জায়গা দখলে প্রতিযোগিতায় নেমছে। এছাড়াও কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের নাপিতখালী বনবিটের আওতায় অধিকাংশ জমি সরকারের বেদখলে চলে যাচ্ছে বলে জানান স্থানীয়রা।এতে করে সংশ্লিষ্ট বনবিভাগের সবুজ বনাঞ্চল নিধন হয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে পাহাড় কেটে সমতল ভুমিতে পরিনত করা হচ্ছে। যার কারনে দিনদিন পরিবেশ হুমকির সম্মুখীন হচ্ছে।
এ ব্যাপারে জানতে অভিযুক্ত মেম্বার ওবাইদুল হকের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তার মোবাইল বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।
বিটকর্মকর্তা আবুল কালামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বনবিভাগের জায়গা দখল করে পাহাড় কাটা ও স্থাপনা নির্মানের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন আমরা খবর পেয়ে পরিদর্শনে গিয়ে দেখি কিছু দিন ধরে মেম্বার স্থাপনার কাজ করছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হচ্ছে।
স্থানীয় হেডম্যান শফিউল আলম ঘটনার কথা স্বীকার করে স্থাপনা বন্ধ করার জন্য কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
তবে এলাকাবাসির অভিযোগ বনবিভাগের লোকজন দফায় দফায় ঘটনাস্থলে গেলেও এখনো বন্ধ করা হয়নি পাহাড় কাটা ও অবৈধ স্থাপনা নির্মান। তারা উর্ধবতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শেয়ার করুন




গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে বিধি মোতাবেক আবেদিত
Design & Developed BY ThemesBazar.Com