January 22, 2022, 2:35 am

শিরোনাম :
মুন্সীগঞ্জ‌ে মিরকা‌দিম পৌরবাসীরা কি স্বাস্থ্য সম্মত গরুর মাংস খাচ্ছে? জ্বালানি থেকে বাড়তি টাকা তুলে সড়ক সংস্কার করা হবে নাসিকে ভোটযুদ্ধ আজ ॥ নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা গোটা নির্বাচনী এলাকা বাংলাদেশ থেকে দ্বিগুণ ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ নেবে ভারত হটলাইনে চার মিনিটেই পর্চা-মৌজা ম্যাপের আবেদন শৈলকুপায় সামাজিক আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে যুবকে পিটিয়ে হত্যা নির্বাচনী সহিংসতায় আহত ব্যক্তির মৃত্যু ঝিনাইদহের শৈলকুপায় নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ৬ লামার কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনে সাড়ে তিন হাজার কন্ঠে উচ্চারিত ‘ইনশাল্লাহ সব সম্ভব’ শত্রুতার আগুনে পুড়ে পুড়ল ৮ দোকান নাইক্ষ্যংছড়ি পাহাড় থেকে অস্ত্র-গুলিসহ ৪ রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার
Uncategorized
মির্জা ফখরুল-মন্টুর উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়: বিএনপি প্রতারক, তাদের চরিত্র বদল হবে না

মির্জা ফখরুল-মন্টুর উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়: বিএনপি প্রতারক, তাদের চরিত্র বদল হবে না

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আসন বণ্টন নিয়ে প্রকাশ্য দ্বন্দ্বে জড়িয়েছে গণফোরাম ও বিএনপি। গণফোরামকে ১০টি আসন দেয়ার প্রস্তাব দিলে গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। ২৭ নভেম্বর সকালে মির্জা ফখরুল ইসলাম গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনে বাসায় একাদশ সংসদ নির্বাচনে আসন বণ্টন নিয়ে প্রস্তাব দিলে দুই নেতার মধ্যে তর্ক শুরু হয়। গণফোরামের কার্যকরী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরীর বরাতে তথ্যের সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গিয়েছে। সুব্রত চৌধুরী বলেন, ২৭ নভেম্বর সকালে ড. কামাল হোসেনের বেইলি রোডের বাসায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সম্ভাব্য কৌশল ও আসন বণ্টন নিয়ে আলোচনায় বসেছিলেন ড. কামাল ও গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু ও বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আলোচনার এক পর্যায়ে বিএনপির মহাসচিব গণফোরামকে মাত্র ১০টি আসন ছেড়ে দেয়ার প্রস্তাব দেন। মির্জা ফখরুলের প্রস্তাবে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন ড. কামাল ও মন্টু। মির্জা ফখরুল বিএনপি ও শরিকদের জনপ্রিয়তা বিবেচনায় গণফোরামকে অতিরিক্ত আসন ছাড় দিয়েছে বলে মন্তব্য করলে তেলে-বেগুনে জ্বলে ওঠেন গণফোরাম নেতারা। এসময় ড. কামাল রাগান্বিত হয়ে বিএনপি নেতাকে তিরষ্কার করেন। বিএনপিকে নির্বাচনমুখী করা, সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে নির্বাচনী প্রেক্ষাপট রচনা করা, বিএনপির হারানো জনসমর্থন ফিরিয়ে আনার জন্য গণফোরামের অবদানের কথা উল্লেখ করেন ড. কামাল ও মন্টু। একপর্যায়ে ড. কামাল এসব আলোচনা বাদ দিয়ে ১০টি আসন নিয়ে সন্তুষ্ট থেকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার অনুরোধ করলে মন্টু বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুলকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করতে থাকেন। সুব্রত চৌধুরী আরো জানান, তর্কের এক পর্যায়ে মোস্তফা মহসীন মন্টু বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুলকে উদ্দেশ করে বলেন, বিএনপি তো আইসিইউতে ছিলো। আপনাদের দ্বিতীয় জীবন দিয়েছেন ড. কামাল ও গণফোরাম। নতুন জীবন পেয়েই বাহাদুরী শুরু করেছেন আপনারা। আপনার তারেক স্যারকে বলবেন, ড. কামাল এত সস্তা লিডার নন। গণফোরামকে ২০টি আসন দিতে হবে। এটি অনুরোধ নয়, বরং গণফোরামের বাস্তবিক চাহিদা। আপনাদের তো মেরুদণ্ড ভেঙ্গে গিয়েছিলো। সেই মেরুদণ্ডে শক্তি জুগিয়েছেন ড. কামাল। আপনারা এখন ড. কামালের সঙ্গে বেইমানি করার চেষ্টা করছেন। আপনাদের তো রাস্তায় ফেলে পেটানোই উচিত। আওয়ামী লীগ যে গত ১০ বছর ধরে আপনাদের রাস্তায় ধরে পিটিয়েছে, এটা ঠিকই করেছে। কারণ একটু সুযোগ পেলে আপনারা ঘাড়ে চেপে বসেন। আপনারা প্রতারক, আজ সেটা দেখলাম। বিএনপির চরিত্র আসলে বদল হবে না।’ এক পর্যায়ে ড. কামাল হোসেন মোস্তফা মহসীন মন্টুকে থামিয়ে দেন এবং তাকে শান্ত হতে বলেন। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও কিছুটা উত্তেজিত হন। তিনি বলেন যে, বিএনপি কারো দয়ায় রাজনীতি করে না। নির্বাচন আর আবেগ এক জিনিস না। বিএনপি ড. কামাল হোসেনকে শ্রদ্ধা করে। কিন্তু তার মানে এই নয় যে, কামাল হোসেনের কথা লঙ্ঘন করা যাবে না। গণফোরাম বিএনপির তুলনায় অনেক ছোট দল। ঢাকার বাইরে তো আপনাদের প্রার্থী খুঁজে পাওয়া যাবে না। রাজনীতি আর ফাপরবাজী আলাদা জিনিস। মির্জা ফখরুল ও মন্টুর উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ে বিরক্ত হয়ে কামাল হোসেন একটা দায়সারা মধ্যস্থতা করেন। ড. কামাল বলেন, আমাদের অবহেলা করলেন আপনারা। অন্ধকে চক্ষুদান করতে নেই। ঠিক আছে, যে যার মতো করে তৈরি হোক। পরবর্তীতে এ নিয়ে আলোচনা হবে।

লেখক:মোঃ নাজমুল হুদা,সাংবাদিক ও সাবেক

শেয়ার করুন




গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে বিধি মোতাবেক আবেদিত
Design & Developed BY ThemesBazar.Com