January 27, 2022, 11:31 am

শিরোনাম :
নিয়োগের চূড়ান্ত সুপারিশপত্র পেলেন ৩৪ হাজার ৭৩ জন শিক্ষক মুন্সীগঞ্জ‌ে মিরকা‌দিম পৌরবাসীরা কি স্বাস্থ্য সম্মত গরুর মাংস খাচ্ছে? আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা ও গণঅভ্যুত্থান ঈদগাঁওতে ২৫ লিটার দেশীয় চোলাই মদসহ আটক-২ জ্বালানি থেকে বাড়তি টাকা তুলে সড়ক সংস্কার করা হবে নাসিকে ভোটযুদ্ধ আজ ॥ নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা গোটা নির্বাচনী এলাকা বাংলাদেশ থেকে দ্বিগুণ ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ নেবে ভারত হটলাইনে চার মিনিটেই পর্চা-মৌজা ম্যাপের আবেদন শৈলকুপায় সামাজিক আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে যুবকে পিটিয়ে হত্যা নির্বাচনী সহিংসতায় আহত ব্যক্তির মৃত্যু ঝিনাইদহের শৈলকুপায় নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ৬
Uncategorized
এমপি হবার নোংরা প্রতিযোগিতা: অন্তর্কোন্দলে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীর লাশ বুড়িগঙ্গায়

এমপি হবার নোংরা প্রতিযোগিতা: অন্তর্কোন্দলে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীর লাশ বুড়িগঙ্গায়

নিউজ ডেস্ক: একাদশ সংসদ নির্বাচনে ধানের শীষের মনোনয়ন প্রত্যাশী যশোর জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আবু বকর আবুকে হত্যার পর লাশ বুড়িগঙ্গা নদীতে ফেলে দেওয়া হয়েছে। এমপি হবার নোংরা প্রতিযোগিতায় দলীয় অন্তর্কোন্দলের জের ধরে এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে। দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর এক ফোনালাপে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে।

২২ নভেম্বর বুড়িগঙ্গা নদীতে যশোর বিএনপির নেতা আবু বকর আবুর লাশ উদ্ধারের পর যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অমলেন্দু দাস অপুর সঙ্গে রিজভীর উত্তপ্ত কথোপকথন হয়। এমপি হওয়ার লোভে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা একজোট হয়ে নির্মমভাবে আবু বকর আবুকে হত্যার পর লাশ বুড়িগঙ্গায় ফেলে দেয় বলেও রিজভীর ওই কথোপকথনে উঠে আসে।

ফোনালাপে বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-ধর্মবিষয়ক সম্পাদক ও যশোর বিএনপির নেতা অমলেন্দু দাস অপুকে রিজভী বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তুলে নিয়ে যাওয়ার নাটকটিও ঠিক মতো করতে পারোনি। কেউ বিষয়টি না বুঝলেও আমি বিষয়টি জানি। তোমার হতবুদ্ধিতার জন্য একটি আসনে আটজন প্রার্থী দাঁড়িয়েছে। চার বারের ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের জনপ্রিয়তা এই নির্বাচনে কাজে লাগাতে পারতে। হত্যা করার কী দরকার ছিলো, মুক্তিপণ নিয়ে ছেড়ে দিতে পারতে।

এসময় কথোপকথনের এক পর্যায়ে রিজভী বলেন, মোস্তাফিজুর (মোস্তাফিজুর রহমান, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি), সামাদ (পৌর বিএনপির সভাপতি আব্দুস সামাদ বিশ্বাস) আমার কলটা রিসিভ পর্যন্ত করছে না। এভাবে ওদের বাঁচানো যাবে না। অমলেন্দু, তুমি ওদের নির্বাচনে দাঁড় করিয়েছ নিজে জয়ী হবার জন্য। এসব আমরা বুঝি। আবুকে হত্যা করে তুমি নিজের ও দলের ক্ষতি করেছ।

তথ্যসূত্র বলছে, আবু বকর আবু যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনের জন্য বিএনপির মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছিলেন। বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে সাক্ষাৎকার দেওয়ার জন্য ঢাকার পল্টনের একটি আবাসিক হোটেলে তিনি অবস্থান করছিলেন। গত ১৮ নভেম্বর তার নিজ দলের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা আবু বকর আবুকে হোটেল থেকে ডেকে দলীয় কার্যালয়ের দিকে নিয়ে যান। এ সংক্রান্ত একটি সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, পৌর বিএনপির সভাপতি আব্দুস সামাদ বিশ্বাস ফোনে কথা বলতে বলতে আবু বকর আবুকে নিয়ে বের হচ্ছিলেন। এরপর থেকে আবু বকরের আর কোন খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার বুড়িগঙ্গা নদীতে তার লাশ পাওয়া যায়।

প্রসঙ্গত, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনের জন্য দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও উপজেলা কমিটির সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, কেন্দ্রীয় সহ-ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অমলেন্দু দাস অপু, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আবু বকর আবু, পৌর বিএনপির সভাপতি আব্দুস সামাদ বিশ্বাস, সেক্রেটারি আলাউদ্দিন আলা, উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মশিয়ার রহমান ও অ্যাডভোকেট নূরুজ্জামান তপন। এই আসনটি নিয়ে বিএনপিতে অন্তর্কোন্দল বহু পুরনো।  যশোর-৬ আসনে বিএনপির সব নেতাই নিজেদের আলাদা আলাদা সংগঠন পরিচালনা করেন। বলা হচ্ছে, অন্তর্কোন্দলের জেরেই আবু বকর আবুকে নির্মমভাবে হত্যা হত্যা করা হলো।

শেয়ার করুন




গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে বিধি মোতাবেক আবেদিত
Design & Developed BY ThemesBazar.Com